মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

কি কি সেবা পাবেন

কম্পিউটার কম্পোজ/ প্রশিক্ষন তথ্য

https://search.yahoo.com/search?ei=utf-8&fr=tightropetb&p=%E0%A6%95%E0%A6%AE%E0%A7%8D%E0%A6%AA%E0%A6%BF%E0%A6%89%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0+%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%B6%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B7%E0%A6%A8+%E0%A6%A4%E0%A6%A5%E0%A7%8D%E0%A6%AF&type=93447_011718

স্ক্যানিং

লেমিনেটিং

ছবিতোলা

নাগরিক আবেদন-

কী কী শর্ত প্রযোজ্য হবে
অ্যাসাইলাম অফিসার যে বিষয়গুলো যাচাই করবে তার মধ্যে অন্যতম হলো আপনি ইমিগ্রেশন অ্যান্ড ন্যাশনালিটি অ্যাক্টের ১০১(এ)(৪২)(এ) ধারায় সংজ্ঞায়িত কিনা এবং একই আইনের ২০৮(বি)(২) ধারায় আশ্রয় পাওয়ার ক্ষেত্রে আপনার ওপর কোনো বাধা প্রযোজ্য কিনা। আশ্রয়ের আবেদন করতে না পারার ও মঞ্জুর না হওয়ার ক্ষেত্রে কিছু শর্ত হলো—
১. আপনাকে সর্বশেষ আমেরিকায় আসার এক বছরের মধ্যে আশ্রয়ের আবেদন করতে হবে। আপনার আশ্রয়ের আবেদন জমা দিতে যদি এক বছরের বেশি দেরি হয় যা আপনার আবেদন করার যোগ্যতাকেই ক্ষতিগ্রস্ত করে তাহলে আপনাকে ৮ সিএফআর ২০৮.৪-এর অধীনে পরিবর্তিত পরিস্থিতি অথবা অস্বাভাবিক পরিস্থিতির উদ্ভব ঘটেছিল—এমন যৌক্তিক কারণ দেখাতে হবে এবং আরও প্রমাণ করতে হবে, ওই সব পরিস্থিতির পরও আপনি একটি গ্রহণযোগ্য সময়ের মধ্যে আবেদন করেছেন।
২. আপনি যদি ইতিপূর্বে আশ্রয়ের আবদেন করে থাকেন, সেটি যদি অভিবাসন সংক্রান্ত বিচারক বা বোর্ড অব ইমিগ্রেশন আপিলে প্রত্যাখ্যাত হয়, তাহলে আপনি দ্বিতীয়বার আশ্রয়ের আবদেন করতে পারবেন না।
৩. আপনি যুক্তরাষ্ট্রে আসার আগে যে দেশের বিরুদ্ধে আপনার ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ার অভিযোগ সেই দেশ বাদে অন্য কোনো দেশে যদি স্থায়ীভাবে বসবাস অথবা ফার্মলি রিসেটেল করে থাকেন তাহলে আশ্রয় চেয়ে আবদেন করতে পারবেন না। 
৪. আপনার বিরুদ্ধে যদি বড় ধরনের ফৌজদারি তৎপরতার অভিযোগ থাকে তাহলেও আশ্রয় চেয়ে আবদেন করতে পারবেন না।
আবেদন জমা দেওয়ার পরে কী কী ঘটবে আশ্রয় চেয়ে আবদেন জমা দেওয়ার পর প্রথমে আপনি মাস খানিকের মধ্যে আবেদনের প্রাপ্তি স্বীকার পাবেন যার মধ্যে আপনার অ্যালিয়েন নম্বর থাকবে। এরপর আপনি আরেকটি চিঠি পাবেন যেখানে আপনাকে ও আপনার আবেদনে আপনার পরিবারের কেউ ডেরিভেটিভ সুবিধাবোগী থাকলে প্রত্যেককেই নিকটস্থ অ্যাপ্লিকেশন সাপোর্ট সেন্টারে গিয়ে ফিঙ্গারপ্রিন্ট দিতে বলা হবে। এরপর সাক্ষাৎকারের চিঠি পাবেন। চিঠিতে উল্লেখিত নির্দিষ্ট দিনে আপনাকে সাক্ষাৎকার দিতে নির্ধারিত ইউএসসিআইএস অফিসে যেতে হবে। সাক্ষাৎকারে আপনি আপনার পছন্দ অনুযায়ী ইন্টারপ্রেটার নিয়ে যেতে পারবেন। অ্যাসাইলাম অফিসার আপনার মামলার রায় দেওয়ার আগে একজন সুপারভাইজরি অ্যাসাইলাম অফিসার পুনরায় এটি আইন সংগত হয়েছে কিনা—তা খতিয়ে দেখবে। মামলার ওপর ভিত্তি করে সুপারভাইজরি অ্যাসাইলাম অফিসার চাইলে আপনার মামলার যিনি অ্যাসাইলাম অফিসার ছিলেন তার সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা করতে মামলাটি ইউএসসিআইএস সদর দপ্তরে অ্যাডিশনাল পর্যালোচনার জন্য পাঠাতে পারেন।

 

জাতীয় ই-তথ্যকোষ

শিক্ষা,

মৌলিক অধিকারগুলোর মধ্যে শিক্ষা অন্যতম। শিক্ষায় তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি)-র ব্যবহার বিষয়ে বর্তমানে নানা কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিদ্যালয়সমূহে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম স্থাপন করা হয়েছে যেখানে শিক্ষকেরা নিজেদের তৈরি করা বা সহজলভ্য আইসিটি উপকরণ ব্যবহার করে আনন্দের সাথে ও কার্যকরভাবে শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। শ্রেণিকক্ষে শিক্ষকদের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের শিক্ষাসহায়ক উপকরণ ছাড়াও এদেশের শিক্ষাব্যবস্থা, ভর্তি তথ্য এবং শিক্ষাবিষয়ক বিভিন্ন তথ্যাদির একটি সংকলন হচ্ছে জাতীয় তথ্যকোষের শিক্ষা পাতাটি। উল্লেখ্য যে, শ্রেণিকক্ষে শিক্ষকদের মাধ্যমে তৈরিকৃত কনটেন্টসমূহ অন্যান্য শিক্ষকগণ প্রয়োজনে পরিবর্ধন ও সংশোধন করে ব্যবহার করতে পারবেন। এছাড়াও, বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহ তাদের তৈরি ও প্রকাশিত গবেষণাধর্মী শিক্ষাবিষয়ক তথ্যাদি স্বতঃস্ফূর্তভাবে পরিবেশন করে তথ্যকোষের এ বিভাগকে সমৃদ্ধিতে সহায়তা করেছেন। এ বিভাগে শিক্ষাবিষয়ক তথ্যাদি টেক্সট, অডিও, ভিডিও, এনিমেশন এবং ছবি আকারে পাওয়া যাবে।

ই মেইল-

কম্পিউটার প্রশিক্ষণ-

ইন্টারনেট ব্রাউজিং-

ইত্যাদি-

 

ছবি


সংযুক্তি



Share with :
Facebook Twitter